প্রাকৃতিক বৈচিত্রের মাঠ। বিছানাকান্দ্রি(যে ভাবে যাবেন)

Read Time6Seconds

বিছানাকান্দি ঘননীল আকাশ, সামনে সাড়ি সাড়ি পাহাড়। পাহাড়ের চূড়ায় মেঘের কুন্ডলী, নৈকট্য গেলে ছেড়া ছেড়া মেঘ, মেঘের বুক চিরে নেমে আসা ঝণার নিচে | নেমে পানি ও পাথরের সম্পর্ক শা শা শব্দ। সেই পানিই আবার মিশে যাচ্ছে। | পিয়াইনের সাথে, পাথরে পাথরে কি নিবিড় বন্ধুত্ব, পাথরে ও নদীতে মিতালি। পাথরে মানুষের জীবন যাপনের যুদ্ধ, চার দিকে বিস্তৃত সবুজ, পাহাড়ে পাহাড়ে সবুজের ঝলকানি। বিস্তৃত মাঠে সবুজের চাদর।এগুলাে কোনাে দৃশ্য কল্প নয়, | সিলেটের বিছানাকান্দি জুড়ে এমন দৃশ্য যেন সত্যিই কেউ ফ্রেমে বন্দী করে। | লটকিয়ে দিয়েছে আকাশের সাথে। দূর থেকে মনে হবে – এই মেঘ.এই মানুষ.এই পাহাড় নদী এবং পাথরের বিস্তৃত স্থির চিত্র এইগুলি। দুই পাশে আকাশচুম্বি পাহাড়, তার মাঝে বয়ে চলা ঝর্নার স্রোত। পানি একেবারে পরিষ্কার, চ্ছ এবং টলমলে। আর ছােট বড় নানান আকৃতির নানান রঙের পাথর তাে আছেই। পানি এত ছ যে পানির নিচের পাথর এবং নিজের ডুবে থাকা পা পর্যন্ত স্পষ্ট দেখা যায়। এই সব কিছুই আপনি দেখতে পাবেন | সিলেটের বিছানাকান্দিতে। এখানে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এত মনােরমা যে দেখে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন।

sylet bicha kandi top10world.net
sylet bicha kandi top10world.net

আশে-পাশের দর্শনীয় স্থান। সিলেটের বিছানাকান্দির আশে-পাশে অনেক গুলাে দর্শনীয় স্থান রয়েছে। বিছানাকান্দির কাছাকাছি যে সকল দর্শনীয় স্থান রয়েছে সে গুলাে হচ্ছে – | লালাখালা, পান্তুমাই, লক্ষণছড়া ইত্যাদি সহ ছােট-বড় অনেক স্থান। রয়েছে। ওখানে গেলে আপনি এ সব গুলােই দেখতে পারবেন। এ সব স্থানের মনমুগ্ধকর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখে আপনি যে তৃপ্তি লাভ করবেন। তা আর কখনােই ভুলতে পারবেন না। আপনার মনে হবে বার বার যেন এখানে ফিরে আসি। কখন যাবেন সারা বছরই যাওয়া যায়, তবে বর্ষা কালে গেলেই বিছানাকান্দির আসল রূপ দেখা যায়। কারণ বর্ষা কাল বলেই আপনি নৌকায় যাতাযাত করতে | পারবেন। না হলে শুকনা মৌসুমে এক ঘণ্টা সময় ধরে হাঁটতে হয়। আমি যখন বিছানাকান্দিতে গিয়েছিলাম, মূল জায়গাটায় পৌছানাের পর কিছুক্ষণ বিমুগ্ধ নয়নে শুধু চেয়ে ছিলাম। সত্যিকার অর্থেই বিছানাকান্দি স্থানটা ছবির চেয়ে অনেক বেশিই সুন্দর। এছাড়া আপনি শীতের সময়েও এখানে যেতে পারেন। শীতের সময়ে গেলে নিরবিগ্নে ঘুরতে পারবেন। কারণ বর্ষাকালে । ঘুরতে অনেক সময় সমস্যাই পড়তে হতে পারে এখানে অধিক পরিমানে বৃষ্টিপাত হয়। (৩১০)।

sylet bicha kandi top10world.net
sylet bicha kandi top10world.net

যেভাবে যাবেন :

প্রথমে ঢাকা থেকে বাস, ট্রেন বা বিমানে করে সিলেট যেতে হবে। তারপর সিলেটে পৌছে গেলে সিলেট শিশু পার্কের সামনে কিনবা আম্বরখানার সামনে থেকে গয়াইনঘাটগামী- সিএনজি, লেগুনা ও অটোরিক্সা পাওয়া যায়। ভাড়া ৯০- ১৩০ টাকা। তারপর গােয়াইনঘাট থেকে হাদারপার বাজার | যেতে হবে সিএনজি কিনবা অটরিক্সাই করে এতে ভাড়া নেবে ৪০-৬০ টাকা। এরপর হাদারপার যেয়ে নৌকা নিয়ে যেতে হবে বিছানাকান্দিতে। কোথায় থাকবেন এবং কোথায় খাবেন সিলেটে থাকা খাওয়ার জন্য অনেক হটেল আছে। যে গুলাের মান ও

অন্যান্য সুবিধা ভেদে ভিন্ন ধরনের হতে পারে। এছাড়া বিছানাকান্দিতে | খাওয়া-দাওয়া করার জন্য ভালমানের রেস্টুরেন্ট রয়েছে । বিছানাকান্দিতে।

সব থেকে ভালাে রেস্টুরেন্ট টির নাম পাকশি রেস্টুরেন্ট যেটি বিছানাকান্দির হাদাড়পার বাজারে অবস্থিত। পরিশেষে বলতে চায় যে, সিলেটের বিছানাকান্দি এর সৌন্দর্য দেখে মুগ্ধ হয়নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া অসম্ভব। তাই এটিই হতে পারে আপনার ভ্রমণের দারুণ একটি গন্তব্য স্থান।

0 0
100 %
Happy
0 %
Sad
0 %
Excited
0 %
Angry
0 %
Surprise

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *